চাই ভালবাসার অধিকার
নীলয় নীল

৮ নভেম্বর ২০১৮

সমকামীদের ভালবাসা বলতে সমকামী বিদ্বেষীদের চোখে ভেসে ওঠে দু’জন পুরুষের পায়ুকামিতার চিত্র। নারী সমকামীদের ব্যাপারে তারা অজ্ঞ। তাদের চোখে ভেসে ওঠা এই চিত্র এবং কিছু মন্তব্য দেখে মাঝে মাঝে অবাক হয়ে ভাবি এদের শিক্ষা-দিক্ষা আজও কতটা পিছিয়ে আছে। সমকামী বলতে যদি এরা শুধু মাত্র যৌনতাকে না দেখে দু’জন মানুষের একে অপরের প্রতি অদৃশ্য বন্ধন এবং ভালবাসাকে উপলব্ধি করতে পারতো তাহলে মনে হয় এরা কখনও এতটা সমকামী বিদ্বেষী হয়ে উঠতে পারতো না।

দু’জন মানুষ একে অপরকে ভালবেসে যখন নিজেরা সুখের স্বপ্ন বুনছে তখন কেন অপর ব্যক্তিদের এত বিদ্বেষ, এত ঘৃণা? তাহলে ভালবাসা বলতে কি শুধুই যৌনতা আর যৌনতা মানে কি শুধুই বাচ্চা উৎপাদন? আর বিবাহ মানেই কি স্বামী হচ্ছে মনিব, আর স্ত্রী হচ্ছে দাসী? এই সংকীর্ণ চিন্তাধারাগুলো আজও বিশাল জনগোষ্ঠির মগজ দখল করে রেখেছে। এই মানুষগুলোই যখন সমলিঙ্গের ভালবাসাকে শুধু মাত্র যৌনতার মধ্যে আবদ্ধ করতে চায় তখন শুধু হতবাক নয় বরং মর্মাহত হয়ে যাই। যৌনতা আমার চোখে ভালবাসার একটি অংশ মাত্র। ভালবাসার পরিধি বিশাল।

যৌন পল্লিতে তো হাজার হাজার মানুষের যাওয়া আসা। কিন্তু কখনও শুনি নি কোন ব্যক্তি একজন পতিতার সাথে যৌন কার্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে, তীব্র কষ্ট পেয়েছে কিংবা যুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু ভালবাসার জন্য জীবন বিসর্জন এবং যুদ্ধে জড়িয়ে পরার ইতিহাসও নেহাতই কম হয়। বরং হাজার হাজার উদাহরণ দেয়া যাবে। ভালবাসার মানুষের বিচ্ছেদ বিরহে কত মানুষ তীব্র কষ্ট নিয়ে রাতের ঘুম ত্যাগ করে জিন্দা লাশ হয়ে বেঁচে আছে তার হিসাব লিখে শেষ করা যাবে না। কিন্তু ভালবাসা নামক এই অদ্ভত অনুভূতিকে কেন শুধু মাত্র লিঙ্গ পরিচয়ের মধ্যে বন্দি করে রাখার অপচেষ্টা করা হয়? ভালবাসা তো ভালবাসাই!

সেটা হোক সমলিঙ্গের মধ্যে কিংবা বিপরীত লিঙ্গের মধ্যে। ভালবাসার আবার লিঙ্গ কি? মানুষ মানুষকে ভালবাসবে এটাই তো ভালবাসার নীতি। সমলিঙ্গের ভালবাসায় যে অনুভূতি, বিপরীত লিঙ্গের ভালবাসাতেও একই অনুভূতি। বিপরীত লিঙ্গের ভালবাসার বিচ্ছেদে যেমন কষ্ট হয়, সমলিঙ্গের ভালবাসার বিচ্ছেদেও একই কষ্ট। তাই আমি সব রকম ভালবাসার স্বাধীনতা চাই। আমি কোন রকম বাছ-বিচার ছাড়াই সম্মান করি ভালবাসাকে আর থুথু নিক্ষেপ করি তাদের চিন্তাধারাকে যারা পাপ পূণ্য এবং যৌনতার দোহাই দিয়ে অচ্ছুৎ করে রাখার চেষ্টা করে ভালবাসাকে।

--------------------------------------------

সম্পাদকের মন্তব্যঃ

সমাজকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে বুঝিয়ে দিতে হবে যে সমকামিতা একটা যৌন কর্ম নয়, সমকামিতা একটা যৌন প্রবৃত্তি। যার এই প্রবৃত্তিটা আছে সে একজন সমলিঙ্গের মানুষকে একই মাত্রায়ে ভালবাসতে পারে। সাথে যৌন কর্ম কি হল না হল, তা এখানে অপ্রাসঙ্গিক।




-----------------------------------------------------
তালিকায় ফিরে যান
মূল পাতা
আমাদের সম্বন্ধে
সম্পাদকের বক্তব্য
তথ্য ভান্ডার
সৃজনশীলতা
সংবাদ
স্মৃতি চারণ
প্রেসবিজ্ঞপ্তি
জরুরী আবেদন
নিবন্ধ
দন্ডবিধি