জীবন যুদ্ধ
কথাকলি

ভাগ্যের কাছে মানুষ সত্যিই বড় অসহায়। ভাগ্যই পারে মানুষের জীবনকে পরিবর্তন করতে। কিন্তু তাই বলে ভাগ্যের উপর সবকিছু বিসর্জন দেওয়া বুদ্ধিমানের কাজ নয়। তবে একটা সময় আসে যখন বাধ্য হয়েই সবকিছু ভাগ্যের উপর ছেড়ে দিতে হয়। আর তখন প্রানপণ যুদ্ধ করতে হয় ভাগ্যের সাথে। সেই যুদ্ধে পরাজিত হলে মৃত্যু অনিবার্য, যদিও সেটা দৈহিক মৃত্যু নয়।

আমি লড়ছি আমার ভাগ্যের সাথে। আমি হেরে যাওয়ার পাত্র নই। আমি এর শেষ দেখে তবেই ছাড়বো। এই সমাজ, আশেপাশের মানুষগুলো যতোই আমাকে অবহেলা, অপমান, ঘৃণা করুক না কেনো, আমি আমার লক্ষ্য থেকে এক বিন্দুও পিছ পা হবো না।

এই পৃথিবী আমাকে ফেলে দিলেও আমার কিছু আসে যায় না। আমি আমার মতো করে নতুন এক পৃথিবী তৈরি করব। এখন সবাই আমার দিকে আঙ্গুল তুলবে, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু এমন একটা দিন আমার আসবে, যখন আমি তাদের দিকে আঙ্গুল তুলে এর পাল্টা জবাব দিবো। আর সেই দিনটার জন্য আমাকে অনেক লড়াই করতে হবে।

নিজের স্বাধীনতাকে আমি নিজেই অর্জন করব। সবাই যদি পারে, আমি কেনো পারবো না? আমিতো সবার থেকে আলাদা নই, বরং আমি নিজেই সবার থেকে উওম। সবার ঘৃণা, আবহেলা, অপমানই আমাকে শক্তি জোগাবে। আমি সবার থেকে দূর্বল নই। লোহাকে যতোই আগুনে পুড়িয়ে আঘাত করা হয়, ততোই মজবুত আর শক্তিশালী হয়। তদ্রুপ আমাকে তোমরা যতোই আঘাত করবে,আমি ততোই শক্তিশালী হব। আমার আত্নশক্তি বৃদ্ধি পাবে। সারা দুনিয়া একদিকে আর আমি একদিকে। একমাত্র মৃত্যুই আমাকে হার মানাতে পারবে আর কেউ না।

হে প্রকৃতি তুমি আমাকে শক্তি দাও, যেনো এই আত্নবিশ্বাসটা সারা জীবন মনের মধ্যে সচল রাখতে পারি। এই নিষ্ঠুর দুনিয়া আমাকে ফেলে দিলেও তুমি তোমার মার্তৃ গর্ভে আমাকে একটু স্থান দাও। আমি সকল অন্যায়,অবিচারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে নিজের অধিকার আদায় করতে চাই।

যারা ধর্ম, সমাজের দোহাই দিয়ে আমাকে দমিয়ে রাখার চেষ্টা করছে একদিন তাদের সব চেষ্টা গুলোকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিব। মৌলবাদী, উগ্রপন্থীদের প্রধান হাতিয়ার হল ধর্ম। কারন তারা জানে যে, এর মাধ্যমেই সবাইকে পরাজিত করা যাবে। আমার ভাবতেও অবাক লাগে যে তারা কতো নিষ্ঠুর আর জঘন্য। এরা মানব কুলের কলঙ্ক। এরা মানুষ হয়ে অন্য আরেক মানুষকে তার প্রাপ্য অধিকার দিতে নারাজ। শুধু তাই নয়, হত্যার মতো নির্মম, নিষ্ঠুর কর্মকান্ড পরিচালনায় পৃথিবীর ইতিহাসে শুধু তাদেরই নজির পাওয়া গিয়েছে।

হিংস্র পশু আর তাদের মধ্যে আমি কোন পার্থক্য খুজে পাই না। তোরা যতোই ভয়ংকর আর মানুষ খেকো হয়ে থাকিস না কেনো, আমি তোদের ভয় পাই না। আমি বাকি সবার মতো নিজের কষ্টকে বুকে নিয়ে বেচে থাকার পাত্র নই। নিজের অধিকার আদায়ের জন্য যা যা করা দরকার আমি তাই তাই করব। এভাবেই চলবে আমার জীবন সংগ্রাম।





-----------------------------------------------------
তালিকায় ফিরে যান
মূল পাতা
আমাদের সম্বন্ধে
সম্পাদকের বক্তব্য
তথ্য ভান্ডার
সৃজনশীলতা
সংবাদ
স্মৃতি চারণ
প্রেসবিজ্ঞপ্তি
জরুরী আবেদন
নিবন্ধ
দন্ডবিধি