আবির্ভাব
শালিক পাখি

অতপর
আমি জন্মেছি এই সুন্দর পৃথিবীতে। আমার শৈশব ও কৈশর বেশ ছিল, ভালই ছিল যৌবনের দু’একটি বসন্তও
আমিত ছেলেই ছিলাম আমার হরমোন গুলো ছেলে হিসেবে সারা দিচ্ছিল বেশ।
আমার চার পাঁচটা ছেলে হিসেবে জানান দিচ্ছিল সুন্দর ছিল আমার কথিত পরিবেশ।
কিন্তু আমি হয়ত ঠিক ছিলাম না ঠিক ছিলনা আমার মনন তত্ত।
সব কিছু পরিবর্তন হচ্ছিল সে এক বিশাল পরির্তন।
ঐ পরিবর্তনে আমার জন্ম তত্ত, আমার শৈশব, আমার কৈশর চেনা পরিবেশ সব ভেসে গেল।
আমি আবিষ্কার করলাম নতুন সত্য কে
আমার ভেতরের আসল সত্তা কে, আমার আমিকে।
যা কিনা ঐ টুকুই আমার আমার আপন চরম চেনা আমি
এত দিন এত ক্ষন যা ছিল সব অন্যের জন্য ছিল অন্যের জানানো ছিল চেনান ছিল।
আমি মুক্ত হলাম, হালকা হলাম,পালকের মত পাতলা হলাম
আমি আমাকে খুজে পেলাম।
আমি প্রেমে পরলাম এই সমাজের কোন পুরুষের গভীর বধির ভাবে ভালবাসা
যত্ন করলাম, আবেহ দিলাম, যৌনতার পরম সুখ দিলাম, অর্থ দিলাম
সর্বশান্ত হলাম তবু হয়ত মন পেলাম না।
জানতাম সবই
ভালবাসা জন্ম নিলে হয়ত সমস্ত যুক্তি উবে যায়।
কারণঃ
( হয়ত শরীর বিত্তর অভাব)
কিন্তু কপাল,,,
আমার এই আবিষ্কার, আমার ভাললাগা, ভালবাসা, প্রেম
বোধ, জীবন ব্যবস্তা, নাকি সমাজ বিরুদ্ধ।
আইন বিরুদ্ধ।।।।
আমি অপরাধী, আমি নিষিদ্ধ,
আমি সলিটারি সেলে বন্দি হলাম, আমি হারাম।
আমার হাতে, মননে, মতে, পায়ে, দর্শনে, ধর্মে বেরি লোহার শেকল পরানো।
এখন আর কিছুই প্রাপ্তি নেই, ইচ্ছা নেই চাওয়া নেই শুধু আছে ছোট্ট জিজ্ঞাষা……
আমি মানুষ তো না?
আইনের জন্য মানুষ,
না মানুষের জন্য আইন।
কারো সৃষ্ট আইন যদি কারো ভাল থাকা নিশ্চিত না করে তবে আমরা কে কাউকে নির্দিষ্ট আইনের ছকে ফেলে তার জীবন কে বিভিষিকাময় করে তোলা।





-----------------------------------------------------
তালিকায় ফিরে যান
মূল পাতা
আমাদের সম্বন্ধে
সম্পাদকের বক্তব্য
তথ্য ভান্ডার
সৃজনশীলতা
সংবাদ
স্মৃতি চারণ
প্রেসবিজ্ঞপ্তি
জরুরী আবেদন
নিবন্ধ
দন্ডবিধি