অনন্তের ঘুম
অরণ্য অনি

তোমার চোখে এখন অনন্তের ঘুম,
তুমি আর কখনো কি ফিরবে?
কত যোজনে স্মরিত হবে ভালোবাসায়,
প্রতিটি ‘মানব’ কোণে?
রক্তরাঙ্গা আজ বিকেলে
রংধনুর হারানো প্রথম ফিতে!
আজো খুজে যাচ্ছি আশা,
সেদিনের বজ্র আঘাতে ধূলিসাৎ অবয়বে।
সে কি শব্দের ঝনঝনানি!
শত সহস্র নীরাবতার মাঝে
স্তব্ধ, বাকরুদ্ধ, নির্বাক
তবুও চিৎকারের প্রত্যাখানে।
বুঝেছিলে আমাদের মাতমগুলো
পিশাচেরা চায়নি সেই প্রকাশ।
তাই নিভিয়ে ছিলো প্রাণপ্রদীপ
দেয়নি জীবনায়ুর অবকাশ।
কিন্তু যে ঋনে করে গেলে বাঁধা
না মিটিয়ে কি করে যায় ভোলা?
আগুন না জালিয়ে কে হবে শান্ত?
যদি প্রতিদান না হয় দেয়া?
এই প্রথমের প্রতিজ্ঞায় তোমার লক্ষ্য,
ভাস্কর্য হয়ে গড়ে দেবই,
এটা হয়ে গেছে তাই অন্যতম।
তোমাকে অস্থি-মজ্জায় মিশিয়ে ফেলেছি
চেষ্টা হতে পারে অন্থহীন দুদিকেই,
একত্র অনেক হৃদয়ে করবো তোমায় ভূমিষ্ট।
তোমার জয়ে এই জীবন পাবে আকার
সে,তার আরো অনেকের।
লাগুক সে যতই সময় আর!
এই বিষজাল ভাঙ্গবেই, মুক্তি পাবে আঁধার!





-----------------------------------------------------
তালিকায় ফিরে যান
মূল পাতা
আমাদের সম্বন্ধে
সম্পাদকের বক্তব্য
তথ্য ভান্ডার
সৃজনশীলতা
সংবাদ
স্মৃতি চারণ
প্রেসবিজ্ঞপ্তি
জরুরী আবেদন
নিবন্ধ
দন্ডবিধি